সিংগাইরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ

সিংগাইরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ

মানিকগঞ্জ সিংগাইরে অনুমতি ছাড়া সরকারি গাছ কাটায় আবারো আলোচনায় বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করে মনোনয়ন পাওয়া চারিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দেওয়ান মোঃ রিপন। তিনি ইউনিয়ন পরিষদের ভেতরে থাকা সরকারি গাছ কেটে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ওই ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় সংলগ্ন একটি কড়ই গাছ কাউকে না জানিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই কেটে একটি অংশ ব্যবহারের জন্য বাড়িতে নিয়ে গেছেন চেয়ারম্যান। গাছের বাকি মূল অংশটুকু চারিগ্রাম বাজারের অদূরে ঝিনুক স’মিলে রাখা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ইউপি সদস্য অভিযোগ করে বলেন, গাছ কাটার ব্যাপারে কিছুই জানেন না তারা। করা হয়নি মিটিং করে কোনো রেজুলেশন। যা কিছু করেছেন চেয়ারম্যান সাহেব তার নিজ দায়িত্বে করেছেন। ওই ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের মেম্বার আব্দুল হালিম মিয়া বলেন, চেয়ারম্যান আমাকে গাছ কাটার কথা বলেছিলেন। কর্তৃপক্ষের অনুমতি না থাকায় আমি অপারগতা প্রকাশ করেছি।

এদিকে, সোমবার (১৪ মার্চ) ঝিনুক স’মিলে গিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ হতে কর্তন করা সরকারি গাছের অংশটি দেখা গেছে। ওই স’মিলের কর্মচারী মো. শামীম হোসেন গাছের অংশটি চেয়ারম্যান সাহেব রেখেছেন বলে স্বীকার করে।

চারিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দেওয়ান মোঃ রিপন হোসেন বলেন, গাছটির কারণে পরিষদের কার্যালয়ের টিন নষ্ট হয়ে যায় বিধায় ইউএনও স্যারের কাছে আবেদন দিয়ে কেটেছি। গাছটি স’মিলে রাখা হয়েছে। সচিবের সাথে কথা বলে পরিষদের ফার্ণিচারের কাজে লাগবো।

এ ব্যাপারে সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিপন দেবনাথ বলেন, অনুমতি ছাড়া চেয়ারম্যান সরকারি গাছ কাটতে পারেন না। বিষয়টি আমি খতিয়ে দেখবো।