মোটরসাইকেল চালাতে পরতে হবে ফুল শার্ট-প্যান্ট-জুতা

মোটরসাইকেল চালাতে পরতে হবে ফুল শার্ট-প্যান্ট-জুতা

দেশের মোটরসাইকেল চালকদের ফুল শার্ট, ফুল প্যান্ট, গোড়ালি ঢাকা জুতাসহ মানসম্মত নিরাপত্তা সরঞ্জাম পরে মোটরসাইকেল চালাতে আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক চলাচল নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)।

দেশের একাধিক সংবাদপত্রে দেয়া একটি বিজ্ঞপ্তিতে বিআরটিএ বলছে, দেশের সড়ক মহাসড়কে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা আশংকাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই সবাইকে সতর্ক করার জন্য তারা ওই বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন।

‘মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা রোধে বিআরটিএ’র সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি’ শিরোনামে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গঠনগতভাবে মোটরসাইকেল অপেক্ষাকৃত একটি অনিরাপদ বাহন। মোটরসাইকেল সাধারণত যুবক বা উঠতি বয়সীরা বেশি ব্যবহার করে থাকে, যাদের মধ্যে দ্রুতগতিতে গাড়ি চালানোর প্রবণতা খুব বেশি।

বিআরটিএ বলছে, দেশে এ যাবত মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশনের সংখ্যা ৩৬ লাখ ৫০ হাজার হলেও মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্সের সংখ্যা ২৩ লাখ ৫০ হাজার। অর্থাৎ বহুসংখ্যক অদক্ষ মোটরসাইকেল চালক ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত মোটরসাইকেল চালনা করছে। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা যাতে না হয়, সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে আরও কিছু পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ।

এগুলোর মধ্যে রয়েছে:
অভিভাবকগণ সন্তানদের মোটরসাইকেল ব্যবহারে নিরুৎসাহিত করুন; শুধুমাত্র জরুরি প্রয়োজনে স্বল্প দূরত্বে মোটরসাইকেল ব্যবহার করুন। দূরপাল্লা বা মহাসড়কে মোটরসাইকেল ব্যবহার করবেন না। মোটরসাইকেল চালনাকালে একজনের বেশি আরোহী বহন করবেন না; ওভারটেকিং করবেন না। স্বল্প গতি বজায় রাখুন; অধিকাংশ ক্ষেত্রে মোড় বা বাঁক ঘোরার সময় মোটরসাইকেল কাত হয়ে পড়ে যায়।

এ কারণে বাঁক অতিক্রম সময় স্বল্পগতিতে মোটরসাইকেল চালান; মোটরসাইকেল চালানোর সময় ইয়ার ফোন বা মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন না। ট্রাফিক আইন, ট্রাফিক সাইন মেনে চলুন; চালক ও আরোহী উভয়েই হেলমেট, চেস্ট গার্ড, নি গার্ড, এলবো গার্ড, গোড়ালি ঢাকা জুতা বা কেডস, আঙ্গুল ঢাক গ্লাভস, ফুল প্যান্ট-শার্ট ব্যবহার করুন; হালনাগাদ বৈধ কাগজপত্র ব্যবহার করুন। ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালাবেন না।