নন্দীগ্রামে দশ বছর পর আ.লীগের সম্মেলন আজ

নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগ

দীর্ঘ দশ বছর পর আজ শুক্রবার বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে পোস্টার-ব্যানারে ছেয়ে গেছে পুরো শহর। সভাপতি-সম্পাদক পদের প্রার্থীদের পক্ষে সড়কে সড়কে সাঁটানো হয়েছে ফেস্টুন। মাইকিংয়ের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় নেতাদের আগমনের খবরে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের আলোচনায় প্রাধান্য পাচ্ছে সম্মেলনের বিষয়।

সাধারণ নেতাকর্মীদের দাবি, ভোটের মাধ্যমে যেন তাদের নেতা নির্বাচিত হয়। তবে নেতৃত্বে আসছেন কারা! কে হচ্ছেন সভাপতি, কে হচ্ছেন সম্পাদক! এনিয়ে চলছে জল্পনা কল্পনা। গেল কয়েকদিন ধরেই সম্মেলন উপলক্ষে নন্দীগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তার হোসেন বকুলের নেতৃত্বে উপজেলা সদরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ ও ছাত্রলীগের লাগাতার প্রচার মিছিল লক্ষ্য করা গেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পৌর সদরের মুনসুর হোসেন ডিগ্রী কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের সভাস্থল প্রস্তুতের কাজ চলছে। প্রস্তুত করা হয়েছে নৌকা মঞ্চ। প্রবেশ পথে ফেস্টুন, পোস্টার-ব্যানারে ছেয়ে গেছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত দলীয় কার্যালয়সহ ব্যক্তি অফিসে নেতাকর্মীদের আনাগোনা লক্ষ্য করা গেছে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ১৫ ডিসেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়েছিলো। সেসময় সভাপতি পদে কোন প্রার্থী না থাকায় জাহেদুর রহমান জাহিদকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি ঘোষণা করা হয়। তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বির মধ্যে ভোটে আনিছুর রহমান সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপর থেকে বিভক্ত, কোন্দল এবং নানা জটিলতার কারণে সম্মেলন করতে পারেননি নেতারা। ২০১৭ সালের ১ সেপ্টেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুর রহমান হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। পরে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পান রফিকুল ইসলাম রফিক।

২০১৮ সালের ১১ এপ্রিল চাল আত্মসাতের অভিযোগে ও দলীয় ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করায় সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমানকে বহিস্কার করে আনোয়ার হোসেন রানাকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করে দলটি। তারপর থেকেই তাদের নেতৃত্বে চলছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। দীর্ঘ ১০ বছর পর অনুষ্ঠিতব্য এ সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরেছে। ইতোমধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে পাঁচটি ইউনিয়নসহ একটি পৌরসভার সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তার হোসেন বকুল ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহেরুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়।

জানা গেছে, আজ শুক্রবার সকাল ১০টায় বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন। প্রধান অতিথি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা এসএম কামাল হোসেন উপস্থিত থাকবেন বলে স্থানীয় নেতারা জানিয়েছেন। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু। নতুন কমিটিতে সভাপতি ও সম্পাদক পদ কে পাবেন, তা নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে বেশি আলোচনা চলছে। দুটি পদে প্রায় ১৫ জন আলোচনায় রয়েছেন। সভাপতি পদে আলোচনায় আছেন দলের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম।

আলোচনার রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আজিজুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এড. ইউনুছ আলী, উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল আশরাফ জিন্নাহ, আওয়ামী লীগ নেতা নজিবুল্লাহ মজনু, কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি শাহজাহান আলী সাজু, সাবেক শ্রমিকলীগ নেতা সরফুল হক উজ্জল, উপজেলা শ্রমিকলীগের আহবায়ক এনামুল হকসহ বেশ কয়েকজন। অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক পদে ‘হেভিওয়েট’ প্রার্থী দলের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য আনোয়ার হোসেন রানা।

অন্যদের মধ্যে রয়েছেন পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও মেয়র আনিছুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুকুল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তারিন জাহিদ সরকার, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও ভাইস চেয়ারম্যান দুলাল চন্দ্র মহন্ত, সাবেক ছাত্রলীগের আহবায়ক আনন্দ কুমার রায়, উপজেলা স্বেচ্ছা সেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান সবুজের নাম শোনা যাচ্ছে।

সম্মেলন সভাস্থলের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে নন্দীগ্রাম থানার ওসি মো. হাসান আলী জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে কয়েকস্তরের নিরাপত্তা থাকবে। যে কোন সংঘাত এড়াতে সমাবেশস্থল ছাড়াও পৌর শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন থাকবে।