1. news.dailynobobarta@gmail.com : ডেইলি নববার্তা : ডেইলি নববার্তা
  2. subrata6630@gmail.com : Subrata Deb Nath : Subrata Deb Nath
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন

দৌলতপুরে চৈত্রসংক্রান্তির মেলা বন্ধ এলাকাবাসীর চাপা ক্ষোভ

দেবাশীষ ঘোষ জয়, মানিকগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২২
  • ২৪৫ বার পঠিত

Tags: ,

দৌলতপুরে চৈত্রসংক্রান্তির মেলা বন্ধ এলাকাবাসীর চাপা ক্ষোভ। সাধারণভাবে বাংলা মাসের শেষ দিনটিকে বলা হয় সংক্রান্তি। বর্ষ শেষের এই দিনটি ‘চৈত্র সংক্রান্তি’ নামে পরিচিত। চৈত্র সংক্রান্তি উপলক্ষে মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার শিববাড়ি এলাকায় প্রাচীনকাল থেকে চলে আসছে চড়ক মেলা।

প্রধানত হিন্দু সম্প্রদায়ের উৎসব এটি। এতে বাঁশ, বেত, প্লাস্টিক, মাটি ও ধাতুর তৈরি বিভিন্ন ধরনের তৈজসপত্র ও খেলনাসহ বিভিন্ন ধরনের দই মিষ্টি, ফল-ফলাদি বেচা-কেনা হয়। কিন্তু হঠাৎ অজানা কারণে এবার চৈত্র সংক্রান্তির সেই মেলা বন্ধ করে দেয়া হয়।

স্থানীয়সুত্রে জানা যায় মঙ্গলবার রাত থেকেই চৈত্রসংক্রান্তি উপলক্ষে মেলাকে কেন্দ্র করে আশেপাশের বিভিন্ন স্থান থেকে দোকানিরা আসতে থাকে কিন্তু আজ বুধবার সকালে হঠাৎ করেই মেলায় দোকান বসাতে না করে দৌলতপুর থানা প্রশাসন। এতে স্থানীয় দোকানিরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এ সময় তারা অনুরোধ করে বলেন এ মেলায় দোকান করতে না দিলে আমাদের অনেক লোকসান হবে অনেককে পথে বসে যেতে হবে । কিন্তু তারপর ও থানা প্রশাসন মেলাটি বন্ধ করে রাখে।

এ সময় মেলায় দোকান করতে আশা অনেক দোকানিকে হতাশায় কান্না করতে দেখা যায়। মেলা বন্ধের প্রশ্নে শিববাড়ি পুজা কমিটির নিরু কর্মকার বলেন পুজা হচ্ছে। তবে মেলা বন্ধ কেন আমি জানি না। সেদিকে যাওয়ার আমি সময় পাইনি।

স্থানীয়বাসীন্দা কার্তিক পাল বলেন আমরা ছোট সময় থেকে এ মেলায় আসি। এবার কেন মেলা বন্ধ করা হলো বুঝলাম না। মেলা বন্ধ করায় অনেক দোকানী পথে বসে গেছে। আমাদের এ চৈত্রসংক্রান্তির মেলা প্রায় দুশত বছরের পুরোনো একটা মেলা। এটা দৌলতপুর উপজেলার একটা ঐতিহ্য। মেলা বন্ধ করায় মিষ্টির দোকানী শেফালি ঘোষ নামে এক মহিলা হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে। সে ৪৫ মণ মিষ্টি বানিয়েছিলো মেলা উপলক্ষে তা বিক্রি করতে না পারায় সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, চৈত্র মাসের শেষ দিনে সংক্রান্তি উপলক্ষে মেলায় বিভিন্ন জায়গার মানুষ এসে ভিড় করে। আশেপাশের এলাকা থেকে বিভিন্ন দোকানিরা মেলাকে কেন্দ্র করে মিষ্টি দই সহ বিভিন্ন পসরা নিয়ে আসে । কিন্তু এবার মেলার অনুমতি নেয়নি বলে থানা প্রশাসন থেকে ঐতিহ্যবাহী সংক্রান্তিতে আজ মেলা বন্ধ করা হয়েছে। এতে অনেক দোকানি মিষ্টি বানিয়ে লোকসানের মুখে পড়েছে।

মেলা বন্ধের প্রশ্নে দৌলতপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ বলেন মেলার কোনো অনুমতি নেয়া হয়নি এছাড়াও এ মেলা পরিচালনার কোনো কমিটিও নেই । এই মেলা যেখানে বসে সেখানে জমি জমা নিয়ে একটা সমস্যা আছে। মেলা চললে হয়তো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতো তাই বন্ধ করে রাখা হয়েছে।

মেলা বন্ধের বিষয়ে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরুল হাসান বলেন মেলাটি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অনেক পুরোনো একটা মেলা। এ মেলা বন্ধ করার কারণ খুজে পাইনি আমি। আমি যেটুকু তথ্য পেয়েছি মেলাটি চলতে দিলে কোনো সমস্যা হতো না। আসলে এ মেলাটি প্রায় দুইশত বছরের পুরোনো একটা মেলা হঠাৎ কি কারণে এ মেলা বন্ধ করা হলো আমি নিজেও বুঝতে পারি নাই। মেলা বন্ধ করায় অনেক ছোট ছোট দোকানি অনেক লোকসানের মুখে পড়েছে। এমনিতেই করোনায় এ সব ব্যবসায়ী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারপর কেন যে মেলাটি বন্ধ করা হলো বুঝলাম না।

এ জাতীয় আরও খবর




All rights reserved.  © 2022 Dailynobobarta
Theme Customized By Shakil IT Park
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com