শুক্রবার, আগস্ট ১২, ২০২২
Homeঢাকা বি.রাজবাড়ীদৌলতদিয়ায় ৬ কিলোমিটারজুড়ে যানজট

দৌলতদিয়ায় ৬ কিলোমিটারজুড়ে যানজট

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের প্রবেশদ্বার রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা যানবাহনের দীর্ঘ সারি তৈরি হয়েছে। এতে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় ৪ কিলোমিটার ও গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় ২ কিলোমিটার সড়কে যানবাহন আটকে রয়েছে।

যানবাহনগুলোর মধ্যে শতাধিক যাত্রীবাহী বাস ও চার শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক রয়েছে। এসব পণ্যবাহী ট্রাক রাত থেকেই ফেরি পারের জন্য মহাসড়কে অপেক্ষা করছে।প্রতিটি ট্রাক চালককে অপেক্ষা করতে হচ্ছে ১২ থেকে ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত। এ ছাড়া যাত্রীবাহী বাস ও পচনশীল পণ্যর ট্রাকেরও দীর্ঘ সারি লেগে আছে।

ঘাট কর্তৃপক্ষ বলছে, অতিরিক্ত গাড়ির চাপ ও ফেরি স্বল্পতার কারণে ট্রাকের সিরিয়াল তৈরি হয়েছে। যাত্রীবাহী বাস ও পচনশীল পণ্যের ট্রাকগুলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করা হচ্ছে। এত দীর্ঘ সময় পারের অপেক্ষায় থেকে ঘাট ব্যবহারকারীদের পোহাতে হচ্ছে চরম ভোগান্তি।

ফরিদপুর থেকে ঢাকাগামী মিরপুর-১ এর ট্রাকচালক স্বাধীন বিশ্বাস বলেন, ‘রাত ৮টায় ঘাটে আসছি। মিরপুর-১ যাব, এখন বাজে সকাল ১০টার বেশি। এখনও ঘাট থেকে এক কিলোমিটার দূরে। এতো সময় জ্যামে বসে থেকে এখন আর ভালো লাগছে না। এইভাবে গাড়ি চালাতেও কষ্ট হয়।’

আব্দুল হামিদ নামে এক বাসচালক বলেন, ‘আজকে বাসের তেমন সিরিয়াল নেই। এক ঘন্টার মধ্যেই ফেরি পাব বলে মনে হচ্ছে। তবে এখনই ঘাটের যে পরিস্থিতি, তাতে ঈদে প্রচুর যানজট হবে বলে মনে হচ্ছে।’ বেনাপোল থেকে শুক্রবার বিকেলে ঘাট এলাকায় আটকে আছেন ইমরান ঢালী।

তিনি বলেন, ‘গতকাল বিকেল থেকে সিরিয়ালে আটকে আছি। ঘাট এলাকা থেকে তিন কিলোমিটার দূরে ছিলাম। রাতে গাড়িতেই ছিলাম। তারপর রাতে হয়েছে বৃষ্টি। সব কিছু মিলে আমাদের ভোগান্তির শেষ নেই। ঠিকমতো খাইতে পারি না, রেস্ট নেই। তারপর রাস্তাঘাটের বিভিন্ন রকম ভোগান্তি।’

এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিসি আরিচা বন্দরের উপপরিচলাক খালেক নেওয়াজ বলেন, ‘এই নৌ রুটে ১৯টি ফেরি চলাচল করে। দুটি ফেরিতে যান্ত্রিক ত্রুটি হওয়ায় পাটুরিয়ার ভাসমান কারখানায় মেরামতে আছে। এখন এই নৌরুটে ছোট বড় ১৭টি ফেরি চলাচল করে।’

ঈদের চাপ নিয়ন্ত্রণের জন্য আরও দুটি অতিরিক্ত ফেরি আনার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এখনও ফেরি দুটি আসেনি। তবে ঈদের আগেই এসে যাবে আশা করছি।’

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular