অব্যবহৃত ডেটা-টকটাইম কার্যকর ১৫ মার্চ থেকে

বিটিআরসি

অব্যবহৃত ডাটা ও টকটাইম ১ মার্চ থেকে নতুন প্যাকেজে ফেরত পাচ্ছেন না মুঠোফোন গ্রাহকরা। বিটিআরসির নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ১ মার্চের পরিবর্তে ১৫ মার্চ থেকে মুঠোফোন গ্রাহকের অব্যবহৃত ডাটা-টকটাইম নতুন প্যাকেজে ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে মুঠোফোন অপারেটররা। সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সেলুলার মোবাইল ফোন অপারেটরসমূহের ডাটা এবং ডাটা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্যাকেজ সম্পর্কিত জারিকৃত নতুন নির্দেশনা মোতাবেক সব মোবাইল অপারেটরকে নির্দেশিকাটির সঙ্গে মিল রেখে প্যাকেজ, সিস্টেম ডিজাইন ও প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণের এবং ডাটা প্যাকেজ সমূহের অনুমোদন কমিশন থেকে গ্রহণ করা সাপেক্ষে পূর্বঘোষিত ১ মার্চের পরিবর্তে ১৫ মার্চ রাত ১২টা থেকেই জারিকৃত নির্দেশিকার সকল নির্দেশনা অনুযায়ী ডাটা এবং ডাটা সংশ্লিষ্ট প্যাকেজসমূহ পরিচালনা করা হবে।

বর্তমানে টেলিকম সেবায় কয়েকশ প্যাকেজের আওতায় গ্রাহক সেবা দিচ্ছে চার মুঠোফোন অপারেটর। অতিরিক্ত প্যাকেজ এবং জটিল শর্তের মধ্যে থেকে পছন্দের প্যাকেজটি খুঁজে নিতে বিভ্রান্তিতে পড়েন গ্রাহকরা। এ নিয়ে প্রায়ই বিটিআরসির কল সেন্টার এবং গণশুনানির সময় অভিযোগ করেন গ্রাহকরা। এরই প্রেক্ষিতে অপারেটরদের বর্তমান কয়েকশ প্যাকেজের সংখ্যা কমিয়ে ৯৫টিতে আনার নির্দেশনা দেয় বিটিআরসি।

নতুন নির্দেশনা অনুসারে, একটি অপারেটর ৩টি বিভাগে ৯৫টি প্যাকেজ দিতে পারবে। এগুলো হচ্ছে, নিয়মিত প্যাকেজ, গ্রাহক কেন্দ্রিক বিশেষ প্যাকেজ এবং গবেষণা ও উন্নয়ন প্যাকেজ।

সব ধরনের গ্রাহকের জন্য নিয়মিত প্যাকেজের সংখ্যা হতে পারবে সর্বোচ্চ ৫০টি। গ্রাহক কেন্দ্রিক বিশেষ প্যাকেজের সংখ্যা হবে সর্বোচ্চ ৩৫টি। বাকি ১০টি গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগে আসবে, যাতে অপারেটররা প্যাকেজ এবং পরিবর্তিত গ্রাহক প্রবণতার কার্যকারিতা বিশ্লেষণ করতে পারে। প্রতিটি প্যাকেজে ৩, ৭, ১৫ এবং ৩০ দিনের সময়কাল থাকবে।

আর নতুন সিদ্ধান্ত ১ মার্চ থেকে কার্যকরের নির্দেশনা দেওয়া হয়। যা সোমবার পরিবর্তন করল নিয়ন্ত্রক সংস্থা।